Breaking News
Home / জাতীয় / পরিবহন ধর্মঘট কেড়ে নিল আরো একটি শিশুর জীবন

পরিবহন ধর্মঘট কেড়ে নিল আরো একটি শিশুর জীবন

সময়ের সমাচার:- ২৯ অক্টােবর ২০১৮ 

শ্রমিকদের বাড়াবাড়ি চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। সরকারকে অবশ্যই কঠোর হতে হবে।পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটে পথে পথে আটকা পড়ে স্বাধারন মানুষ নানান প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হচ্ছে জনগণকে। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে সাধারন মানুষের ভোগান্তির শেষ নেই, একের পর এক অমানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে ধর্মঘটের নামে। রাস্তায় চলাচলের সময় স্বাধাবরন মানুষ হয়রানি হচ্ছে ,তাদের মুখে মবিল ,তেল মেখে দিচ্ছে । মাইক্রবাস ,অ্যাম্বুলেন্স, সিএনজি আটকে দিচ্ছে  আন্দোলন রত শ্রমীক । যার ফলে অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরই মারা গেল সাতদিন বয়সী এক নিষ্পাপ শিশু। এই ঘঠনাটি ঘটেছে রোববার দুপুরে সিলেট মৌলভীবাজার বড়লেখা উপজেলার চান্দগ্রাম এলাকায়। মৃত শিশুটি বড়লেখা সদর ইউনিয়নের অজমির গ্রামের কুটন মিয়ার একমাত্র মেয়ে ছিল।মেয়েটি মাত্র সাত দিন আগে পৃথিবীর আলো দেখেছে।কিন্তু অত্যন্ত দঃখের বিষয় এখনো তার নাম রাখা হয়নি।এর পরিবহন ধর্মঘট নামক অভিশাপের কারণে তাকে পৃথিবীর েমায়া ত্যাগ করে চলে যেতে হয়।

মৃত শিশুর চাচা আকবর আলী বলেন, রাত থেকে মেয়েটি কোনো কিছু খাচ্ছিল না, শুধু কাঁদছিল। তাই রোববার সকালে আমরা শিশুটিকে আমাদের উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যাই। পরে হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে দ্রুত সিলেট হাসপাতালে নিতে বলেন, কারন রোগীর অবস্থা তেমন ভাল ছিল না। তই আমরা মেয়েটিকে নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে দ্রুত সিলেটের  উদ্দেশ্যে রওনা দেই। সিলেট যাওয়ার পথে বড়লেখা উপজেলার দরগাবাজারে অ্যাম্বুলেন্সটি আটকে দেয় পরিবহন শ্রমিকরা। অনেক কথা কাটাকাটির কিছুক্ষণ পর ছেড়ে দেয় তারা।  একটু যাওয়ার পর আবারও দাসেরবাজার এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সটি আটকে দেয় শ্রমিকরা। সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে চান্দগ্রাম বাজারে গেলে আবারও গাড়িটি আটকায় শ্রমিকরা। এদিকে মেয়েটির অবস্থা প্রচণ্ড খারাপ হতে থাকে কিন্তু শ্রমিকরা কোন কিছুই বোঝতে চাচ্ছেনা। এবং তারা অ্যাম্বুলেন্স চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করতে শুরু করে। পরে সেখানেই শিশুটি মারা যায়। এরপর আমরা বিয়ানীবাজার হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার  চিকিৎসক বলেন, অনেক আগেই শিশুটি মারা গেছে, এরপরে চোখের পানি দরে রাখতে পারলামনা অনেক কান্নায় ভেঙ্গে পড়লাম। এ ঘটনায় সরকারের কাছে আমার প্রশ্ন কি দোষ করেছিল আমার মেয়েটি ,কেন তাকে এই ভাবে চলে যেতে হল আমরা ।বিষয়টি নিয়ে অামি  থানায় অভিযোগ করেছি।এ বিষয়ে কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু ইউসুফ বলেন, বিষয়টি নিন্দনীয় এবং দুঃখজনক। অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

Check Also

রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখলে খালেদার মুক্তিতে রাজি সরকার!

সময়ের সমাচার: ৪ নভেম্বর ২০১৮ বহু প্রত্যাশিত ও বহুল আলোচিত সংলাপের মধ্যে দেশের সচেতন নাগরিকসমাজ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares

xu hướng thời trangPhunuso.vnshop giày nữgiày lười nữgiày thể thao nữthời trang f5Responsive WordPress Themenha cap 4 nong thongiay cao gotgiay nu 2015mau biet thu deptoc dephouse beautifulgiay the thao nugiay luoi nutạp chí phụ nữhardware resourcesshop giày lườithời trang nam hàn quốcgiày hàn quốcgiày nam 2015shop giày onlineáo sơ mi hàn quốcshop thời trang nam nữdiễn đàn người tiêu dùngdiễn đàn thời tranggiày thể thao nữ hcmphụ kiện thời trang giá rẻ